দুর্গাপূজায় ভুলেও করবেন না এই ৭টি কাজ হতে পারে সর্বনাশ !

0
459

এরকম আরও মজাদার নিউজ পেতে আমাদের পেজটি স্ক্রল করে নীচে দেখুন অথবা আমাদের নতুন সংযোজন আরও পড়ুন অপশনটিতে ক্লিক করুন।

ভগবানে বিশ্বাস রাখুন কি অবিশ্বাস করুন , আস্তিক  হন কী নাস্তিক তা আপনার নিজস্ব ব্যাপার কিন্তু, এ কথা বিশ্বাস করতেই হবে যে আমাদের চারিপাশে অশুভ শক্তি ও শুভ শক্তি উভয়ই থাকে।আর এই শুভ শক্তির প্রতীক হিসেবে  কিংবা দুষ্ট দমনকারী অর্থাত অশুভ শক্তি দমনকারীর প্রতীক হিসেবে দুর্গা ভগবানের আরাধনা করা হয়।যা মূলত শুভ শক্তির আরাধনা।আর বাঙালি শ্রেষ্ঠ পুজো দুর্গাপুজো।সারাবছর ধরে বাঙালিরা অপেক্ষা করে থাকে এই চারটি দিনের জন্য

সকলে মায়ের কাছে আর্শীবাদ চান যাতে সারাবছর ভালো কাটে ।ভগবানের এই শক্তিতে যে মানুষের জীবনে এক সুন্দর পথের আগমন ঘটে নানা সমস্যা কেটে যায় ।তবে আমাদের জীবনে ভগবানের শুভ শক্তির প্রভা পড়বে না অশুভ শক্তির তার দ্বায়িত্ব আমাদের।আমরা অজান্তে এমন কিছু করে থাকি যার ফল ভোগ করতে।তাই জেনে নিন পুজোর মধ্যে কী করা উচিত কী নয়।কী করলে আপনি দেবী দুর্গার কৃপাদৃষ্টি থেকে বঞ্চিত হবেন।তাই সাবধান হন আর ভুল গুলি থেকে নিজেকে শুধরে নিন।

1.দেরী করে ঘুম থেকে ওঠা-এমনি তেই স্বাস্থ্য বিধি মতে দেরী করে ঘুম থেকে ওঠা উচিত নয়।চিকিৎসকদের মত অনুযায়ী early to bed early to rise অর্থাত রাত 11 টার মধ্যে ঘুম আর ভোরে উঠলে শরীর সুস্থ থাকে।কিন্তু অনেকেই এই বিধি মানেন না।কিন্তু পুজোর এই কটি দিন সকালে ঘুম থেকে উঠুন পারলে কাক ভোরে অর্থাত সূর্য উদয়ের আগে উঠে পড়ুন।না হল দেবীর ক্রোধ আপনার সংসারে পড়বে।

2.বড়দের সম্মান করা-এমনিতেই আমরা ছোট থেকে শিক্ষা পায় বয়োজ্যেষ্ঠদের সম্মান করার,তাদের কথা মান্য করার,তাদের প্রনাম করে আশীর্বাদ নেওয়া।পুজোর এই মায়ের আগমনে মায়ের পুজোর সঙ্গে প্রত্যেকের উচিত নিজের পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠ সদস্যদের সম্মানজ্ঞানে পূজিত করা,অযথা তর্ক না করার, তাদের অসম্মান না করার, কষ্ট না দেওয়া তবেই দুর্গাপুজো সফল হবে আপনার জীবনের মনস্কামনা পূরন হবে,দেবীর কৃপা লাভ করবেন।কিন্তু না করলে দেবী দূর্গা রোষে পড়বেন কৃপাদৃষ্টি থেকে বঞ্চিত হবেন এবং লক্ষীদেবীও আপনার প্রতি বিরূপ হবেন।

3.ঘর দোর অপরিচ্ছন্ন রাখা-ঘর পরিষ্কার গুছানো থাকলে মনও ভালো থাকে ,জীবানুদের আগমন ঘটে না তবে দুর্গপুজো আগে সকলকে দেখবেন ঘর পরিষ্কার করেন।কারন মা লক্ষ্মী হল এমন এক দেবী যিনি অপরিষ্কার ঘরে থাকেন না তাই তার কৃপাদৃষ্টি থেকে যদি বঞ্চিত হতে না চান তবে পুজো আগে ঘরকে পরিষ্কার করে তুলুন ।

4.মেজাজ হারিয়ে ফেলা-অনেক মানুষ থাকেন যারা ছোট বিষয়কে তিল থেকে তাল বানিয়ে তোলেন তারই সঙ্গে ক্রোধে নিজের মেজাজ হারিয়ে ফেলেন তার পার্শ্ববর্তী মানুষদের কটু কথা বলেন যার ফলে নিজের সঙ্গে অন্যদের খুশিতে ভাটা পড়ে ।এতে মা দুর্গা ভীষন রুষ্ট হন যার ফলে আপনার জীবনের নানা কাজে বাধা বিপত্তি সৃষ্টি হতে থাকে।তাই পুজোর দিনগুলিতে নিজের মাথা ঠান্ডা রাখুন নিজেও আনন্দ করুন অপরকেও করতে দিন।

5.সন্ধ্যেতে ঘুমানো-আপনি যদি অসুস্থ হয়ে থাকেন তাহলে আলাদা বিষয় কিন্তু দুর্গাপুজোর দিনগুলি সন্ধ্যা বেলায় না ঘুমনোই ভালো নাহলে আপনার জীবনে দুর্ভাগ্য নেমে আসবে যা আপনাকে দুর্বিসহ করে তুলবে তাই পুজোর এই কটা দিন সন্ধ্যা বেলায় ঘুমাবেন না।

6.ঝগড়া বিবাদ-এই সময় কারো সঙ্গে বিবাদে জড়াবেন না।বছরে এই চারটি দিনের জন্য বাঙালিরা সারা বছর অপেক্ষা করে তাই নিজেও খুশি থাকুন অন্যদের খুশি রাখুন।
7.মদ্যপান-মদ্যপান থেকে বিরত থাকুন ।এই সময় মদ্যপানে দেবী রুষ্ট হন।এরফলে আর্থিক ক্ষতি দেখা যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here