এবারে নিজেই ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন করুন অনলাইনে কোনো টাকা ছাড়াই, দেখে নিন

0
241

রাস্তাঘাটে গাড়ি চালানোর জন্য সুরক্ষার পর সবচেয়ে বেশি যে জিনিসটা সরকার হয়, সেটা হল ড্রাইভারের লাইসেন্স। এই লাইসেন্স হল সংশ্লিষ্ট সরকারের তরফ থেকে দেওয়া একটি অনুমতি পত্র, যার মাধ্যমে একজন মানুষ যে ড্রাইভার, তার গাড়ি চালানোর অধিকার আছে রাস্তায় সেটা জানা যায়। কিন্তু এই লাইসেন্স বের করা কিন্তু খুব সহজ কাজ নয়। এর জন্যে ফর্ম ফিলাপ করা থেকে শুরু করে হাজার খানেক ঝামেলা পোহাতে হয়। আর এই ঝামেলার ভয়েই অনেকে লাইসেন্স বের করতে চায় না। কিন্তু লাইসেন্স একটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। কিন্তু এখন লাইসেন্স বের করা খুবই সহজ হয়ে গেলো। পুরোপুরি অনলাইনেই কেউ তার নিজের লাইসেন্স নিজেই বের করে নিতে পারবেন। আসুন জেনে নিই বিস্তারিত কিভাবে কেউ নিজের লাইসেন্স নিজেই বের করে নিতে পারবেন।

আপনি কি নিয়মিত বাইক বা অন্যান্য কোন গাড়ি চালিয়ে বেড়ান রাস্তায়, কিন্তু আপনার কোন ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই? এবার থেকে আর ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে আর দৌড়ঝাঁপ করতে হবে না। এবার থেকে ঘরে বসে অনলাইনেই পেয়ে যান ড্রাইভিং লাইসেন্স। প্রযুক্তির দৌলতে এখন ঘরে বসেই এক ক্লিকে ড্রাইভিং লাইসেন্স। ব্যাপারটি পরীক্ষামূলক ভাবে চালু হয়েছিল দিল্লীতে। এরপর সেটা সারা ভারতে ছড়াতে সময় নেয়নি। দিল্লীতেই সর্ব প্রথম সমিস্ত রিজিওনাল ট্রান্সপোর্ট অফিস গুলির কাজ সম্পূর্ণ ভাবে অনলাইনে চালু হয়। এর ফলে সাধারণ মানুষ ড্রাইভিং লাইসেন্স, লারনারস লাইসেন্স, গাড়ির রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট সবকিছুর জন্যেই অনলাইনে আবেদন করতে পারবে।

দিল্লীতে প্রথম চালু হলেও এই পদ্ধতির সুবিধা এখন ভারতের আরও বেশ কয়েকটি রাজ্যে পাওয়া যাচ্ছে। এই রাজ্য গুলির মধ্যে আছে, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, গুজরাত, গোয়া, হরিয়ানার মতো রাজ্য গুলো। এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গ সহ আরও বেশ কয়েকটি রাজ্যই ঘোষণা করেছে এই সুবিধা অতি শীঘ্রই চালু করার কথা।

এই নয়া পদ্ধতিতে লাইসেন্স বানানোর কাজটা অনেক তাড়াতাড়ি হবে এবার থেকে। এই পদ্ধতিতে লাইসেন্স এর আরটিও এর সুবিধাও অনলাইনেই পাওয়া যাবে। লাইসেন্স এর জন্যে আবেদন কে আরও সহজ ও সুবিধাজনক করতে সরকার একটি বিশেষ ধরণের সফটওয়্যার তৈরি করেছে বলে জানা যাচ্ছে।

এই পদ্ধতিতে ট্রান্সপোর্ট ডিপার্টমেন্ট কোন ধরণের কাগজে করা আবেদনপত্র জমা নেবে না, সম্পূর্ণ ব্যাপারটাই অনলাইনেই হবে। এর ফলে অপ্রয়োজনীয় ভিড়, ঝঞ্জাট কমবে। সুবিধা হবে সাধারণ মানুষেরই। তবে যারা অনলাইনে ফি জমা দিতে পারবে না, তাদের জন্যে ট্রান্সপোর্ট ডিপার্টমেন্টের তরফ থেকে থাকছে বিশেষ ব্যবস্থা। তাদের জন্য ডোরস্টেপ ডেলিভারি সার্ভিস ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এরজন্য একটি দেওয়া নম্বরে ফোন কর‍তে হবে, আর ট্রান্সপোর্ট ডিপার্টমেন্টের কর্মী বাড়িতে গিয়ে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস ও ফি সংগ্রহ করে আনবেন।