ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত ছবির নাম হতে পারে ‘দ্য পার্সেল’

0
196

ফ্রেশ কনটেন্ট নিয়ে এই প্রতিযোগিতার বাজারে মাথা উঁচিয়ে দাড়ানোটা একরকমের লড়াই’ই বটে। লড়াইটা বানিজ্যিক ছবি বনাম ইন্ডিপেন্ডেন্ট ফিল্মের। বানিজ্যিক ছবির কাছে একদিকে যেমন মোটা বাজেট রয়েছে, তেমনই রয়েছে তুখোড় ব্যাক সাপোর্ট। তবে ইন্ডিপেন্ডেন্ট ছবি গুলির একমাত্র সম্বল বলতে তাদের ফ্রেস কন্টেন্ট আর পরিচালকের কেরামতি। সঙ্গে নিজস্বতা বলে জিনিসটা ইন্ডিপেন্ডেন্ট ফিল্ম মেকিংয়ে বেশ ভালোরকম খুজে পাওয়া যায়। দর্শকদের কাছে তা পছন্দসই। তাই মাঝে মধ্যেই জল উল্টো দিকে গড়ায়। মোটা বাজেটের বানিজ্যিক ছবি থাকা সত্ত্বেও দর্শক হলমুখো হন কোনো এক ইন্ডিপেন্ডেন্ট ছবি দেখতে। যেমনটা হয়েছিলো ‘বিলু রাক্ষস’র বেলা। পরিচালক ইন্দ্রাশিস আচার্য যেন নিজের গল্প’ই তুলে ধরেছিলেন তাঁর প্রথম ছবি ‘বিলু রাক্ষস’এ। ইন্দ্রাশিস বাবু কিন্তু ইন্ডিপেন্ডেন্ট ফিল্ম মেকিংয়ে বিশ্বাসী। ‘বিলু রাক্ষস’র সাফল্য এই বিশ্বাস আরোও তুখোড় করেছিল। তাই দ্বিতীয় ছবি ‘পিউপা’র বেলাতেও একই সূত্র ধরে অটুট ছিলেন। সম্প্রতি হানোই ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের জন্য নিবার্চিত হয়েছে ছবিটি। ভারতের পক্ষ থেকে এই চলচ্চিত্র উৎসবে অংশগ্রহনকারী একমাত্র ছবি ইন্দ্রাশিস বাবুর ‘পিউপা’।

‘পিউপা’র পর পরিচালক ভাবনা শুরু করে দিয়েছেন তাঁর তৃতীয় ছবি নিয়েও। শোনা যাচ্ছে এই ছবিতে তিনি কাস্ট করতে চলেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত’কে। খুব সম্ভবত দেখা যেতে পারে শাশ্বত চ্যাটার্জী’কেও। ঋতুপর্ণা’র স্বামীর চরিত্রে অভিনয় করবেন তিনি। ছবির নাম হতে পারে ‘দ্য পার্সেল’। ছবির সম্ভাব্য গল্পটাও অনেকটা এরকম, ঋতুপর্ণা’র জন্মদিনে একটি অজ্ঞাত পার্সেল আসে তার কাছে। আর তা থেকেই বাড়ির মধ্যে শুরু হয় বিভিন্ন রকম টানাপোড়েন। এই টানাপোড়েন কিভাবে ট্র্যাজিডির রুপ নেয় তাই দেখা যাবে সিনেমায়। ছবির সঙ্গীতের হেঁশেল সামলাচ্ছেন জয় সরকার। এছাড়াও কাস্টিংয়ের তালিকায় উঠে এসেছে প্রদীপ মুখার্জী, দামিনী বেণী বসু, অম্বরীশ ভট্টাচার্য’দের নাম।