মহাকাশে যাবেন শাহরুখ খান!

0
162

বলিউডে তাঁর শাসন কাল প্রায় তিন দশকেরও বেশি। ৩০ বছর আগের মতোই এখনও তাঁর নামেই ভরে যায় হল। এতোদিনের ক্যারিয়ারে এমন কোনো একটা বছর নেই যে হিট ছবির তালিকায় তাঁর সিনেমা জায়গা পায়নি। কিং খান নামের স্বার্থকতা হয়তো এটুকুতেই শেষ হয়না। সামনেই তাঁর জন্মদিন। যতদিন সিনেমার সাথে জুড়ে রয়েছেন ঠিক ততদিনই নিজের জন্মদিনে তাঁর ভক্তদের রিটার্ন গিফ্ট দেওয়ার তত্ত্বটা আজও ধরে রেখে দিয়েছেন তিনি। এবছরও নিশ্চয় তার ব্যতিক্রম ঘটবে না। রীতিমতো ‘জিরো’ ছবি নিয়ে তিনি বেজায় ব্যস্ত। তাঁর জন্মদিনেই মুক্তি পাবে ছবির ট্রেইলার। তবে জন্মদিনের রিটার্ন গিফ্ট হিসেবে আরও বিশেষ কিছু রয়েছে শাহরুখের ঝুলিতে। বলিউডি অন্দর মহল তা নিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ উৎসাহিত। পরিচালক মহেশ মাথাই’র ছবি ‘সারে জাহান সে আচ্ছা’র কাস্টিংয়ের তালিকায় উঠে এসেছে শাহরুখের নাম। প্রথমে ছবিটির জন্য আমীর খানের নাম মার্জিত হলেও শেষমেষ নিশ্চয়তার সীলমোহর ছিনিয়ে নিলেন শাহরুখ’ই।

ভারতীয় মহাকাশচারী রাকেশ শর্মা’র জীবনী নিয়ে তৈরি হবে এই ছবি। বায়োপিক বললেও হয়তো কোনো অংশে ভুল হবে না। আজকের প্রজন্মের কাছে রাকেশ শর্মা নামটা অনেকটাই ধোঁয়াশার মতো। তাই প্রশ্ন উঠতেই পারে কে এই রাকেশ শর্মা? উত্তর খুঁজতে গেলে একটু-আধটু ব্যাকডেটেড হিসেবে জানা বেশ প্রয়োজন। সালটা ১৯৮৪, ইন্ডিয়ান স্পেস রিসার্চ অর্গানাইজেশন এবং সোভিয়েত ইন্টারকসমস স্পেস প্রোগ্রামের যৌথ উদ্দ্যোগে প্রথম কোনো ভারতীয় নাগরিক পৃথিবীর অভিকর্ষ ছাড়িয়ে মহাকাশে পাড়ি দেন। রাকেশ শর্মা নামটা যেন এরপরই জড়িয়ে পড়েছিলো লাইম লাইটের সাথে। প্রায় ৭ টা দিন অভিকর্ষের বাইরে কাটানোর পর পৃথিবীতে ফিরে আসেন তিনি। এখনো অবধি মহাকাশে পাড়ি দেওয়া একমাত্র ভারতীয় নাগরিক তিনিই। এরপর ভারত সরকারের পক্ষ থেকে তাকে অশোক চক্র ভূষণে ভূষিত করা হয়। সমকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দ্রা গান্ধী তাকে জিজ্ঞেস করেছিলেন যে মহাকাশ থেকে আমাদের ভারতকে কেমন দেখায়? উত্তরে রাকেশ শর্মা বলেছিলেন ‘সারে জাহান সে আচ্ছা’। রাকেশ শর্মার এই কথাকে ঘিরেই ছবির শিরোনাম ঠিক করেছেন পরিচালক। সম্ভবত ‘জিরো’র কাজ মিটলেই আরও কিছু তথ্য উঠে আসবে শাহরুখের নয়া ছবি নিয়ে।